ই-পেপার | রবিবার , ১৪ জুলাই, ২০২৪

চট্টগ্রাম বন্দরে অবৈধ নিয়োগের বিরুদ্ধে আন্দোলনের হুশিয়ারী

উচ্চ আদালতে মামলা থাকা সত্ত্বেও চট্টগ্রাম বন্দরে কিছু অসাধু কর্মকর্তা অর্থের বিনিময়ে অবৈধভাবে সর্বোচ্চ আদালতের রায়কে তোয়াক্কা না করে ওয়াচম্যান নিয়োগের পাঁয়তারা করছে। এতে চট্টগ্রাম বন্দরের মতো জায়গায় শ্রম অসন্তোষের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। চট্টগ্রাম বন্দর মেরিন কন্ট্রাক্টর
পাহারাদার কল্যাণ সমিতি এ অবৈধ নিয়োগের বিরুদ্ধে আন্দোলনের হুশিয়ারী দিয়েছেন। সম্প্রতি এ সমিতির উদ্যোগে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে করে নের্তৃবৃন্দরা।
এ সময় সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মনোয়ার আলী রানা, সাধারণ সম্পাদক মনির হোসেন, সহ সভাপতি নিজাম উদ্দিন, সহ-সভাপতি মো. সেলিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহ জামাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. গিয়াস উদ্দিন, দপ্তর সম্পাদক খায়রুজ্জামান বাবু, সাংস্কৃতিক সম্পাদক মো. আলী হোসেন মোল্লা, ক্রীড়া সম্পাদক আলী আকবর, নির্বাহী সদস্য মুজিবুল হক, রতন কুমার সিংহ প্রমুখ।
সংশ্লিষ্টরা জানান, চট্টগ্রাম বন্দরের জন্মলগ্ন থেকে প্রাইভেট ঠিকাদারের মাধ্যমে ওয়াচম্যান বা পাহারাদার, ডক শ্রমিক, মার্চেন্ট শ্রমিক, লাইশিং আনলাইশিং শ্রমিক, ক্রেন অপারেটর, স্টাফ সুপার ভাইজার, ফোরম্যান, মার্কম্যান, জেনারেল ভেন্ডর শ্রমিক, এষ্ট্রা হাউস গ্যাং নিয়োগ দান করে আসছে। যা বর্তমানেও চলমান আছে।
  • কিন্তুু বর্তমানে বন্দর কর্তৃপক্ষের কিছু অসাধু কর্মকর্তা দেশের সর্বোচ্চ আদালতের রায় অমান্য করে শুধুমাত্র নিজেদের স্বার্থে আমাদের বৈধ সংগঠনের সদস্য ওয়াচম্যান বা পাহারাদার নিয়োগে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে।

সংগঠনের নেতারা বলেন, এই অবৈধ নিয়োগ বন্ধ করা না হলে আমরা সংগঠনের উদ্যোগে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করবো। এতে যদি বন্দরে শ্রমিক অসন্তোষ দেখা দেয়, তার দায়ভার সম্পূর্ণ বন্দর কর্তৃপক্ষকে নিতে হবে। এই অবৈধ নিয়োগ বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর সুদৃষ্টি এবং হস্তক্ষেপ কামনা করেন সংগঠনের নেতারা।