ই-পেপার | মঙ্গলবার , ২৩ জুলাই, ২০২৪

আরএসসিভূক্ত প্রতিষ্ঠানে প্রতিবন্ধকতা সমাধানে উদ্যোগ গ্রহণ করবে বিজিএমইএ

তৈরী পোশাক শিল্পের বিল্ডিং, ইলেক্ট্রিক্যাল ও ফায়ার সেইফটি নিশ্চিতকরণে চট্টগ্রামের আরএমজি সাসটেইনেবল কাউন্সিল (আরএসসি) এর তালিকাভূক্ত পোশাক শিল্প মালিকদের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার বিকাল ৩টায় বিজিএমইএ ভবনের মাহাবুব আলী হলে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বিজিএমইএর প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময়  সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আরএসসির পরিচালক ও বিজিএমইএর সহ-সভাপতি মিরান আলী এবং আরএসসির পরিচালক ও বিজিএমইএর প্রাক্তন    পরিচালক নাফিস-উদ-দ্দৌলা।

সভায় বিজিএমইএর প্রথম সহ-সভাপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন- ২০১৩ সালে রানা প্লাজা দূর্ঘটনা পরবর্তীতে বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের বিল্ডিং, ইলেক্ট্রিক্যাল ও ফায়ার সেইফটি নিশ্চিতকরণে বিদেশী ক্রেতাদের পরিদর্শন সংস্থা অ্যাকর্ড ও অ্যালায়েন্স এর কার্যক্রম শুরু হয়। এ সংস্থা সমূহের বিভিন্ন ধরণের অযৌক্তিক কার্যক্রমের কারণে অনেক পোশাক কারখানা বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে ২০২০ সালে বিজিএমইএ ও শ্রমিক সংগঠন ও ক্রেতাদের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে আরএসসি গঠিত হয়। বিদেশী ক্রেতাদের  নির্দেশনায় রপ্তানি আদেশ প্রাপ্তিতে বিল্ডিং, ইলেক্ট্রিক্যাল ও ফায়ার সেইফটি নিশ্চিতকরণে বাধ্যবাধকতায় আরএসসি বিশেষ ভূমিকা পালন করছে।

এ ক্ষেত্রে আরএসসি টিমের কার্যক্রমের স্বচ্চতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণসহ সংশ্লিষ্ট কারখানা সমূহের সাথে যাতে কোন দূরুত্ব সৃষ্টি না হয় সে বিষয়ে কার্যক্রম সমন্বয়ের উপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। আরএসসি ভূক্ত যে সকল প্রতিষ্ঠান কমপ্লায়েন্স প্রতিপালনে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হচ্ছে তা দ্রুত সমাধানের লক্ষ্যে বিজিএমইএ জরুরী উদ্যোগ গ্রহণ করবে বলে তিনি আশ্বাস প্রদান করেন।

আরএসসির পরিচালক ও বিজিএমইএর সহ-সভাপতি মিরান আলী বলেন- পোশাক কারখানায় বিল্ডিং, ইলেক্ট্রিক্যাল ও ফায়ার সেইফটি বিষয়ক কমপ্লায়েন্স প্রতিপালনে যথাযথ আইন মানা আবশ্যক। আরএসসির বিদ্যমান আইনের কাঠামোর মধ্যে তার কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তিনি আরএসসির সংক্রান্ত কার্যক্রম সম্পাদনে প্রতিষ্ঠান কর্তৃক কোন ধরণের জটিলতা-সমস্যার সম্মুখীন হলে তা আলোচনার মাধ্যমে দ্রুত সমাধানের আশ্বাস প্রদান করেন।

আরএসসির কার্যক্রমের সাফল্য উল্লেখ্য করে তিনি বলেন, অ্যাকর্ড গত ৭ বছরে ২১১টি কারখানা রিমিডেয়েশন কার্যক্রম সম্পন্ন করে কিন্তু আরএসসি কর্তৃক গত ৮ মাসে ৫৫৪টি প্রতিষ্ঠানের রিমিডেয়েশন কার্যক্রম সম্পন্ন করেছে।

বিজিএমইএর সহ-সভাপতি রাকিবুল আলম চৌধুরী বলেন- পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানের বিল্ডিং, ইলেক্ট্রিক্যাল ও ফায়ার সেইফটি বিষয়ক কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়নে বিভিন্ন পরিদর্শন সংস্থা সমূহ ভিন্ন ভিন্ন নির্দেশনা প্রদানের কারণে রেমিডিয়েশন কার্যক্রম সম্পন্ন হচ্ছে না। এ ক্ষেত্রে তিনি পরিদর্শন সংস্থা আরএসসিকে আরো সক্রিয়, সহনশীল ও পোশাক শিল্প বান্ধব হওয়ার আহ্বান জানান।

আরএসসি তালিকাভূক্ত চট্টগ্রামের পোশাক শিল্প প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন সমস্যাদির বিষয়ে আলোচনা করেন- আরএসসির পরিচালক ও বিজিএমইএর প্রাক্তন পরিচালক জনাব নাফিস-উদ-দ্দৌলা। মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- বিজিএমইএ চট্টগ্রাম অঞ্চলের আরএসসি বিষয়ক দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিচালক ইনচার্জ মিরাজ-ই-মোস্তফা (কায়সার), বিজিএমইএর প্রাক্তন পরিচালক ও মদিনা গার্মেন্টস্্ লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ মুসা, মারস স্পোর্টসওয়্যার লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ মহসিন, সিজার এ্যাপারেলস্্ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাইফুল আজম চৌধুরী।

এতে আরো উপস্থিত ছিলেন- বিজিএমইএ’র পরিচালক এ.এম. শফিউল করিম (খোকন), মো. হাসান (জ্যাকি), এম. এহসানুল হক সহ আরএসসির কার্যক্রমের সাথে সংশ্লিষ্ট পোশাক শিল্প মালিক ও উর্দ্ধতন কর্মকর্তা।